দীর্ঘ এক বছর পর মুক্তাগাছা থানা পুলিশের সহযোগীতায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিক ফিরে পেল ক্রয়কৃত জমি।

AUTHOR: durnitirsondhane
POSTED: বুধবার ১৩ জানুয়ারি ২০২১at ২:৫৭ পূর্বাহ্ণ
FILED AS: ভিডিও
78 Views

নেপাল ধর: মুক্তাগাছা উপজেলা বাঁশাটি ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামের মৃত্যু সুরুজ আলীর ছেলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিক (৩০) পেশায় একজন ভিক্ষুক, ঢাকায় ভিক্ষাবৃত্তি করে ভিক্ষার টাকায় ১ বছর আগে প্রতিবেশী আবু বক্কর সিদ্দিক (৩৫) পিতা-মৃত নুরুল হক মাতা খোদেজা বেগম গ্রাম কুতুবপুর থানা-মুক্তাগাছা এর নিকট থেকে নগদ ২,৩০,০০০/ টাকায় ১ কাঠা জমি ক্রয় করেন । উক্ত জমির খাজনা খারিজও তার নামে করেন, কিন্তু জমিতে গেলে বিবাদী আবু বক্কর সিদ্দিক সহ তার স্ত্রী ,ভাই, বোন এবং মা মিলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিককে মারধোর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়, তারপর থেকে এক বছর যাবত ন্যায় বিচারের আশায় মুক্তাগাছা ও ময়মনসিংহে বিভিন্ন মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে থাকে। এমন অবস্থায় মুক্তাগাছা এলাকার জনপ্রতিনিধি নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক কারো ডাকেই বিবাদীরা সাড়া না দিয়ে উল্টো দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিককে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এলাকাবাসী এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিরা মিলে অন্ধ মানিককে থানায় পাঠায় এবং বিষয়টি মানবিক কারণে দেখার জন্য অনুরোধ করেন। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিক অভিযোগ দাখিল করার পর মুক্তাগাছা থানা পুলিশ বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেন। কিন্তু আসামিরা থানা পুলিশকেও তোয়াক্কা না করে, থানায় অভিযোগ দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আসামিরা অন্ধ মানিককে বেধড়ক মারপিট করে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয়। এমনকি মেরে লাশ গুম করে ফেলবে বলে হুমকি দিতে থাকে। পরবর্তীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিক আবু বক্কর সিদ্দিক সহ ৬ জনকে আসামি করে এজাহার দাখিল করে। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানিকের এজাহার এর ভিত্তিতে মুক্তাগাছা থানার মামলা নং ১ তারিখ ১-১-২০২১ধারা ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩০৭/৩৭৯/৫০৬/১১৪ পেনাল কোড আসমীরা হলো ১/আবু বক্কর সিদ্দিক (৩৫)
২/খোদেজা বেগম (৫৭) এবং ৩/সুলতানা বেগম সহ
মোট তিন জনকে গ্রেফতার করে ইং ১-১-২০২১ তারিখ বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরবর্তীতে আসামিরা জামিনে বেরিয়ে এসে সাংবাদিক সম্মেলন করে মুক্তাগাছা থানা পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ উপস্থাপনা করে মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য উঠে-পড়ে লেগেছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।


[bwitSDisqusCom]