সাতক্ষীরায় ভূমিদস্যু লাদেন বাবুর প্রধান সহযোগী শহিদুল পুলিশের খাঁচায় বন্দি।

AUTHOR: durnitirsondhane
POSTED: সোমবার ২৭ জুলাই ২০২০at ২:১৩ পূর্বাহ্ণ
FILED AS: ভিডিও
243 Views

নিজস্ব প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরায় ওহিদুল ইসলাম নামক এক কাপড় ব্যবসায়ীকে পাঁচ দিন আটকে রেখে ৫ লাখ টাকা চাঁদা চাওয়ার ঘটনায় পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সোসাইটির মহা-সচিব সহ চার জন কে আটক করেছে সাতক্ষীরা থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন জি এম শহিদুল ইসলাম (৪৩) চেয়ারপারসন পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সাংবাদিক সোসাইটি, পিতা-মৃত ইমান আলী গাজী গ্রাম কালিগঞ্জ সাতক্ষীরা। আফসানা বেগম(৩৫)মহাসচিব পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সাংবাদিক সোসাইটি, স্বামী মনিরুজ্জামান, আব্দুল্লাহ(৩৫) সাধারণ সম্পাদক,ও নুরুল ইসলাম অরফে বাবু (৪২)। আটককৃতরা সবাই পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সাংবাদিক সোসাইটির মহাসচিব,চেয়ারপার্সন,সাধারন সম্পাদক ও কেশিয়ার পদে কর্মরত আছেন বলে জানান তারা।
মামলা সুত্রে জানা যায় ওহিদুল ইসলাম নামক এক কাপড় ব্যবসায়ীর সাথে বেশ কয়েক বৎসর যাবৎ পরিচিত সাতক্ষীরা সংগ্রাম হসপিটালের সামনে জনৈক লিটনের ৫ম তলার নিচের তলায় অবস্থিত পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সোসাইটির মহা সচিব আফসানা বেগম ও জিএম শহীদুুল ইসলামের। দীর্ঘদিনের ব্যবসায়ীক সম্পর্কের এক পর্যায়ে গত ২৭ জুুুলাই ২০২০ তারিখে কাপড় কেনার জন্য ওহিদুল কে বিকাশে ৩ হাজার টাকা দিয়ে স্পাম্পোল পাঠাতে বলেন মানবাধিকার বাস্তবায়ন সোসাইটির মহা-সচিব আফসানা বেগম। পরে কাপড় ব্যবসায়ীর পাঠানো স্পাম্পোল পছন্দ হওয়ায় আফসানা বেগম কাপড় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে দেড় লাখ টাকার কাপড় কিনবেন বলে তাকে ২২ জুন ২০২০ তারিখ সংগ্রাম হসপিটালের সামনে অবস্থিত লিটনের পাচ তলা বাড়ির নিচের তলায় তাদের অফিসে আসতে বলেন। কাপড় ব্যবসায়ী সেখানে আসলে আফসানা বেগম(৩৫), জিএম শহিদুল ইসলাম(৪৩), আব্দুল্লাহ(৩৫) ও নুরুল ইসলাম অরফে বাবু (৪২) এই চার জন কাপড় ব্যবসায়ী ঘরে আটকে রেখে মারধর করেন এবং তার কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেন।দীর্ঘ তিন আটকে প্রচন্ড রকম নির্যাতন করেন। মামলা সুত্রে আরো জানা যায় অত্যাচার চলাকালীন ওহিদুল তার পরিবারের কাছে টাকার কথা বলবেন বলে বুদ্ধিকরে অপহরণকারীদের কাছ থেকে মোবাইল চান এবং বুদ্ধি করে বাথরুমে গিয়ে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এ কল দেন। অপহৃত ব্যক্তির ফোন পেয়ে জরুরী সেবা থেকে সাতক্ষীরা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আসাদুজ্জামান কে বিষয়টি অবগত করলে সাতক্ষীরা থানার ওসি আসাদুজ্জামান, পরিদর্শক তদন্ত আবুল কালাম আজাদ, পরিদর্শক অপারেশন বিপ্লব কান্তি মন্ডল ও এসআই হেদায়েদ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযান চালিয়ে বাথরুমে আটকিয়ে রাখা ওহিদুল কে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা থানা হেফাজাতে নিয়ে আসেন। অভিযানে আফসানা বেগম(৩৫), জিএম শহিদুল ইসলাম(৪৩), আব্দুল্লাহ(৩৫) ও নুরুল ইসলাম অরফে বাবু (৪২) কে আটক করা হয়। একটি বিশেষ সূত্রে জানা যায় ভূমিদস্যু লাদেন বাবুর প্রধান সহযোগী এই শহিদুল।এমন কোনো অপকর্ম নেই যা এই শহিদুল ও লাদেন বাবু করেনা। বড় সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী সেজে দিনের পর দিন নিরীহ মানুষের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে তারা।লাদেন বাবু নিরীহ মানুষের উপরে অত্যাচার করে,আর এই শহিদুল মানবাধিকারের চেয়ারপারসন সেজে তাকে সহযোগিতা করে।
আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাতক্ষীরা থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান বলেন আটককৃতের নামে চাঁদাবাজির মামলা করে করেছেন উদ্ধারকৃত কাপড় ব্যবসায়ী ওহিদুল ইসলাম।


[bwitSDisqusCom]